মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

কার্যবিবরণী ও গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত ,কয়রা

উপজেলা আইন শৃংখলা কমিটির আগষ্ট/১৩ মাসের সভার কার্যবিবরণী

 

 

সভাপতি       ঃ     মোঃ শামীম হাসান, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ,কয়রা , খুলনা ।

 

তারিখ          ঃ     ২৯-০৮-২০১৩ খ্রিঃ ।

 

স্থান            ঃ     উপজেলা নির্বাহী অফিসারের অফিস কক্ষ,কয়রা,খুলনা।

 

সময়           ঃ     সকাল ১১.০০ টা।            

 

উপস্থিতি       ঃ     পরিশিষ্ট-ক ।

 

     সভাপতি উপস্থিত সদস্যগণকে স্বাগত জানিয়ে সভার কার্যক্রম শুরু করেন। অতঃপর ২২-০৭-২০১৩ তারিখে  অনুষ্ঠিত সভার কার্যবিবরণী পাঠ  করা হয়। কার্যবিবরণীতে কোন প্রকার সংশোধনী না থাকায় সর্বসম্মতি ক্রমে অনুমোদিত হয়।

বিগত সভার সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের অগ্রগতিঃ

 

     অফিসার ইনচার্জ,কয়রা থানা বলেন জুন/১৩ মাসে মামলার সংখ্যা ১৯ টি এবং জুলাই/১৩ মাসের মামলার সংখ্যা ২৪টি। এক্ষেত্রে দেখা যায় জুন মাসের তুলনায় জুলাই মাসে মামলার সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। এছাড়া উপজেলার আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক ভাবে চলছে।

 

আলোচনা- ১ঃ অপরাধ বিবরনী পর্যালোচনাঃ জুন/১৩ ও জুলাই/১৩ এর তুলনা মূলক অপরাধ বিবরণী সভাপতি সভায় উপস্থাপন করেন। 

মাসের নাম

খুন

ধর্ষণ/

নারী /শিশু

চুরি,ডাকাতি/অস্ত্রমামলা

নারী ও শিশু অপরাধ

অগ্নিসংযোগ

  মাদক

অপহরণ

পাচার

এসিড নিক্ষেপ

অন্যান্য

 মোট

 জুন-১৩

--

-

০১

০৩

--

--

০৩

-

১২

১৯

জুলাই-১৩

০২

--

০১

০৩

--

০১

০১

-

১৬

২৪

   

সিদ্ধান্ত ঃ  অফিসার ইনচার্য,কয়রা থানাকে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির বর্তমান ধারা অব্যাহত রাখার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

 

আলোচনা- ২ঃ আমাদী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বলেন, তাঁর ইউনিয়নের ইমান আলী গাজী ও তার ছেলেরা রণজিত নামের এক হিন্দু লোকের বাড়ী দখল করেছে।এ ব্যাপারে রণজিত আদালতে মামলা করেছে। ইমান আলী ও তার ছেলেরা জায়গীরমহল হাসপাতালে চিকিৎসা হয়ে খুলনা থেকে ১টা মিথ্যা মেডিকেল সার্টিফিকেট সংগ্রহ করেছে। তিনি আরো বলেন, রোগী প্রথমে স্থানীয় জায়গীর মহল হাসপাতালে ভর্তি হয় সেজন্য ভর্তি কালিন রোগীর আঘাত যাচাই করে অফিসার ইনচার্জ কয়রা থানাকে মামলা রেকর্ড করার জন্য অনুরোধ করেন। এ বিষয়ে অফিসার ইনচার্য বলেন, জায়গীর মহল হাসপাতালের মেডিকেল সার্টিফিকেটে আঘাতের বর্ণনা থাকে কিন্তু যখন তারা রোগী রেফার্ড করে তখন সার্টিফিকেটে আঘাতের বর্ণনা থাকে না। বিষয়টি সর্ম্পকে সভায় বিসত্মারিত আলোচনা করা হয়।

 

সিদ্ধামত্মঃ অফিসার ইনচার্জ কয়রা থানাকে মামলা রেকর্ড করার সময় মেডিকেল সার্টিফিকেট যাচাই করার জন্য অনুরোধ করা  হয়।

 

আলোচনা-৩ঃ বাগালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বলেন, মারামারীর মোকদ্দমায় স্থানীয়ভাবে মিমাংশা হওয়ার পর ও মামলা প্রত্যাহারে থানায় অহেতুক হয়রানীর শিকার হতে হয়। তিনি এ বিষয়ে জরুরী ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ করেন।

 

সিদ্ধামত্মঃ অফিসার ইনচার্জ কয়রা থানাকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ করা হলো।

 

 

-২-

 

আলোচনা-৪ঃ মহারাজপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বলেন, মিথ্যা মামলার সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে।মানুষ অহেতুক হয়রানীর শিকার হচ্ছে। কালনা বাজারে একজন চাউল ব্যবসায়ীকে মাদক ব্যবসায়ী হিসেবে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি এ বিষয়ে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য অফিসার ইনচার্য কয়রা থানাকে অনুরোধ করেন।

 

সিদ্ধান্ত ঃ  বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য অফিসার ইনচার্য কয়রা থানাকে অনুরোধ করা হয়।

 

 

আলোচনা- ৫ঃ মহেশ্বরীপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বলেন, তক্ষক সাপ ধরা ও পাচার বৃদ্ধি পেয়েছে। তক্ষক সাপ ক্রয় বিক্রয় নিয়ে ২টি চক্রের মধ্যে মারামারী হয়েছে। এদের বিরম্নদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা দরকার। সুন্দরবনে ডাকাতি বৃদ্ধি পেয়েছে। ইতোপূর্বে ডাকাতদের হাতে ধরা পড়লে জেলেদের ১০ হাজার টাকা দিতে হত।বর্তমানে ডাকাতরা নৌকা ছিনিয়ে নিচ্ছে। এ ব্যাপারে অফিসার ইনচার্য বলেন,ডাকাতদের বিরম্নদ্ধে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। ইতোমধ্যে ০৩ জন ডাকাত অস্ত্রসহ ধরা পড়েছে। বাগালী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বলেন তার ইউনিয়নে চুরির প্রবনতা বেড়েছে। তিনি পুলিশি টহল বৃদ্ধির অনুরোধ করেন। উঃ বেদকাশী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বলেন অজিয়ার নামে এক জুঁয়াড়ী নিজের ঘরে সিঁদ কেটে বউ ও ছেলেকে দা দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মকভাবে আহত করে। তিনি জুঁয়াড়ীর বিরম্নদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ করেন।

 

সিদ্ধামত্ম-ঃ অফিসার ইনচার্জ কয়রা থানাকে বিষয়টি তদমত্ম করা সহ চুরি হওয়া এলাকায় পুলিশ টইল বৃদ্ধির অনুরোধ করা হয়।

 

আলোচনা-৬ ঃ  কয়রা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বলেন, উঃ বেদকাশীর কাছারীবাড়ী বৃক্ষ মেলায় মদ, জুঁয়ার আসর বসার সম্ভাবনা আছে। কিছুলোক স্টল বরাদ্দ নিয়ে অধিক অর্থে সাব বরাদ্দ দিয়ে থাকে। উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বলেন মেলায় নাশকতার সম্ভাবনা রয়েছে। এর প্রেক্ষিতে উঃ বেদকাশীর চেয়ারম্যান বলেন, বৃক্ষমেলা কমিটির মাধ্যমে স্টল বরাদ্দ দেয়া হয়। কোন সাব বরাদ্দ দেয়ার সুযোগ নেই। অদ্যাবধি মদ,জুঁয়ার আসর বসেনি। বিষয়টি বৃক্ষমেলা বাস্তবায়ন কমিটির তদারকিতে আছে।

 

সিদ্ধামত্ম-ঃ  নিরাপত্তার ব্যবস্থা সহ মদ,গাঁজা ও জুঁয়ার আসর যাতে না বসতে পারে সে বিষয়ে বৃক্ষমেলা কমিটি সর্তক দৃষ্টি রাখবেন মর্মে সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়।

 

আলোচনা-৭ঃ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বলেন,পল্লী বিদ্যুতের মিটারের জন্য ১২ মাস পূর্বে দরখাস্ত দেয়া সত্ত্বে ও মিটার পাওয়া যাচ্ছে না।এতে এলাকার লোকজন নাগরিক অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। চেয়ারম্যান আমাদী বলেন,পল্লী বিদ্যুতের অব্যবস্থাপনা রয়েছে।তারা এমনভাবে বিদ্যুত লাইন নির্মাণ করছে তাতে গাছ-পালার ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে।চেয়ারম্যান উঃ বেদকাশী বলেন,পল্লী বিদ্যুত সমিতির চেয়ারম্যান উঃ বেদকাশীর জনগুরুত্বপূর্ণ এলাকার পরিবর্তে কম গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় লাইন নির্মাণের চেষ্টা চালাচ্ছেন।এর প্রেক্ষিতে কয়রা অভিযোগ কেন্দ্রের ইনচার্য বলেন, সব ট্রান্সফরমার অভারলোড ক্রমন্বয়ে পরিবর্তন করা হবে। সেজন্য মিটার সরবরাহে বিলম্ব হচ্ছে।কেবলমাত্র পুরাতন লাইন চালু করার জন্য মিটার দেয়া হচ্ছে।তিনি আরো বলেন,পল্লী বিদ্যুত লাইন নির্মাণ করে না অন্য সংস্থা লাইন নির্মান করে। সভাপতি বলেন, সমিতির চেয়ারম্যান ও ঠিকাদারের বিরম্নদ্ধে লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

সিদ্ধামত্ম ঃ  পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিকে গ্রাহকসেবা নিশ্চিত করার জন্য অনুরোধ করা হয়। এছাড়া ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের বিরম্নদ্ধে লিখিত অভিযোগ দেয়ার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

 

-৩-

 

আলোচনা-৭ ঃ অতঃপর পুলিশিং কমিটির কার্যক্রম নিয়ে আলোচনা শুরু হয়।অফিসার ইনচার্য কয়রা থানা বলেন , ৫ বছর পর পর পুলিশিং কমিটি গঠন করা হয়। তারা তাদের দায়িত্ব পালন করে না। তারা সালিশ বিচার করে। এদের কাজকর্ম পর্যবেক্ষণ করা দরকার।

     

সিদ্ধান্ত ঃ অফিসার ইনচার্য, কয়রা থানাকে পুলিশিং কমিটির কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করার জন্য অনুরোধ করা হয়।

 

        অতঃপর আর কোন আলোচ্য বিষয় না থাকায় সভাপতি উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে সভার সমাপ্তি ঘোষনা করেন।

 

 

                                                                                                                                        সাক্ষরিত

    (মোঃ শামীম হাসান)

    নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট

     কয়রা, খুলনা ।

 

স্মারক নং-উনিঅ/ আইন শৃংখলা/কয়রা /১৩-৫৭৩ (৫০)                             তারিখঃ ২৯-০৮-২০১৩ খ্রিঃ।

 

০১। মুখ্য উপদেষ্টা ,মাননীয় সংসদ সদস্য ১০৪, খুলনা -০৬।

০২। জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, খুলনা ।

০৩। পুলিশ সুপার , খুলনা ।

০৪।চেয়ারম্যান(ভারপ্রাপ্ত),উপজেলা পরিষদ,কযলা,খুলনা।

০৫। ভাইস চেয়ারম্যান/মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান,উপজেলা পরিষদ, কয়রা খুলনা ।

০৫। উপজেলা .............................................................. অফিসার,কয়রা, খুলনা ।

০৬। অফিসার ইনচার্জ, কয়রা থানা ,খুলনা।

০৭। উপজেলা কমান্ডার, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, কয়রা,খুলনা।

০৮। চেয়ারম্যান.............................................  ইউপি (সকল), কয়রা , খুলনা ।

০৯। প্রেস ক্লাব.................................................. কয়রা, খুলনা ।

১০। জনাব...................................................... কয়রা, খুলনা ।

১১। সংশ্লিষ্ট কপি ।                                

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

পরিশিষ্ট-‘‘ক’’

 

 উপজেলা পরিষদের আগষ্ট/১৩ মাসের আইন শৃংখলা সভার উপস্থিত সদস্য এবং কর্মকর্তাবৃন্দ।

 

ক্রঃ নং

     

ক্রঃনং

  

০১

অনুপস্থিত=

জনাব নাসিমা আলম

চেয়ারম্যান(ভারপ্রাপ্ত)

উপজেলা পরিষদ,কয়রা,খুলনা।

০১

জনাব শামীম হাসান

উপজেলা নির্বাহী অফিসার,

কয়রা,খুলনা।

০২

 

জনাব শেখ আঃ রশিদ,

ভাইস চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদকয়রা,খুলনা।

০২

প্রতিনিধি

অফিসার ইনচার্জ,

কয়রা থানা,খুলনা।

০৩

অনুপস্থিত=

জনাব নাসিমা আলম

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান,উপজেলা পরিষদ,কয়রা,খুলনা।

০৩

অনুপস্থিত=

জনাব দেবাশিষ সরদার

উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার,কযরা,খুলনা

০৪

জনাব জি,এম মতিউর রহমান

উপজেলা কমান্ডার,বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কয়রা,খুলনা।

০৪

জনাব মোঃ আকবর আলী

উপজেলা শিক্ষা অফিসার

কয়রা, খুলনা।

০৫

অনুপস্থিত/=

জনাব এ্যাডঃ অধীর কৃষ্ণ মন্ডল

সভাপতি, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ,কয়রা শাখা।

০৫

অনুপস্থিত/=

জনাব ফতেমা নার্গিস জামিন

উপজেলা মহিলা বিষয়ক অফিসার,কযরা,খুলনা

০৬.

জনাব মোঃ আমির আলী গাইন

চেয়ারম্যান, আমাদী ইউনিয়ন পরিষদ

কয়রা,খুলনা

০৬

  

জানাব মোঃ শাহাবুদ্দিন

উপজেলা আনসার ও ভিডিপি,কয়রা,খুলনা।

০৭

জনাব মোঃ ওলিউলস্নাহ

চেয়ারম্যান, বাগালী ইউনিয়ন পরিষদ

কয়রা,খুলনা

০৭

অনুপস্থিত/=

জনাব মোঃ তৈহিদুর রহমান

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃপঃ অফিসার,কযরা,খুলনা

০৮

 

জনাব বিজয় কুমার সরদার

চেয়ারম্যান, মহেশ্বরীপুর ইউনিয়ন পরিষদ,কয়রা,খুলনা

০৮

অনুপস্থিত=

জনাব মুসত্মা গাউসুল হক

অধ্যক্ষ,কপোতাক্ষ মহাবিদ্যালয়

কয়রা,খুলনা

০৯

জনাব মোঃ মনিরুজ্জমান

চেয়ারম্যান, মহারাজপুর ইউনিয়ন পরিষদ

কয়রা,খুলনা

০৯

অনুপস্থিত=

জনাব মোঃ আমিরল ইসলাম

অধ্যক্ষ,জোবেদা খানম মহাবিদ্যালয়,কয়রা,খুলনা।

১০

জনাব এস,এম শফিকুল ইসলাম

চেয়ারম্যান, কয়রা ইউনিয়ন পরিষদ

কয়রা,খুলনা

১০

 

অধ্যক্ষ,খান সাহেব কোঃ উদ্দিন কলেজ

কয়রা,খুলনা।

১১

জনাব সরদার মতিয়ার রহমান

চেয়ারম্যান ,উঃ বেদকাশী ইউনিয়ন পরিষদ কয়রা,খুলনা

১১

জনাব মোঃ ইউনুছ আলী

অধ্যক্ষ,কালনা ফাজিল মাদ্রাসা

কয়রা,খুলনা

১২

জনাব এম,এম,এ মান্নান

চেয়ারম্যান,দঃ বেদকাশী ইউনিয়ন পরিষদ ,কয়রা,খুলনা

১২

জনাব মোঃ আঃ মালেক

অধ্যক্ষ,কয়রা উঃ চক কামিল মাদ্রাসা

কয়রা,খুলনা

১৩

অনুপস্থিত=

মাস্টার আমজাদ হোসেন

মসজিদকুড়,কয়রা,খুলনা।

১৩

অনুপস্থিত=

জনাব বিকাশ চন্দ্র মন্ডল

প্রঃ শিঃ কয়রা মদিনাবাদ মডেল মাধ্যঃ বিদ্যালয়

 

-২-

 

১৪

অনুপস্থিত=

আঃ সাত্তার পাড়

কয়রা,খুলনা।

১৪

অনুপস্থিত=

জানাব মোঃ নুরুল হক

প্রঃ শিঃ সুন্দরবন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়,কয়রা।

১৫

অনুপস্থিত=

জি,এম শাহাবুদ্দিন

কয়রা,খুলনা।

১৫

জানাব খগেন্দ্রনাথ মন্ডল

প্রঃ শিঃ গ্রাজুয়েটস মাধ্যমিক বিদ্যালয়

কয়রা,খুলনা।

১৬

অনুপস্থিত=

এফ,এম মনিরুজ্জামান

চেয়ারম্যান বি আর ডি বি,কয়রা,খুলনা।

১৬.

জানাব মোঃ সাইফুলস্নাহ

সুপার, কয়রা মদিনাবাদ দাখিল মাদ্রাসা

কয়রা,খুলনা।

১৭

জনাব মোস্তফা শফিকুল ইসলাম

সভাপতি, কয়রা উপজেলা প্রেসক্লাব

কয়রা,খুলনা।

১৭

অনুপস্থিত/=

ষ্টেশন অফিসার, বানিয়া খালী, কাশিয়াবাদ ও কোবাদক

কয়রা,খুলনা।

১৮

অনুপস্থিত=

মোঃ এমদাদুল হক খান

১৮

 

১৯

মোঃ দাউদ আলী মোলস্না

সভাপতি

উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি,কয়রা,খুলনা।

১৯

 

২০

প্রতিনিধি

এ জি এম

খুলনা পলস্নী বিদ্যুত সমিতি।

২০

 

২১

এফ এম মনিরম্নজ্জামান

চেয়ারম্যান

বি আর ডি বি,কয়রা,খুলনা।

২১